‘কেউ যদি কিছু না করে তাহলে আমি মারা যাব’

ছবি সংগ্রহীত

দিন দিন করোনাভাইরাস মহামারিরর শিকার হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন হাজারা হাজার মানুষক। তবে এর চেয়েও কষ্ট দায়ক যখন চিকিৎসাকের গাফিলতির শিকার হয়ে মৃত্যুকাল অতিবাহিত করতে হয়।আর এমনি হৃদয় ব্যাথীতো কষ্ট নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন ৩৮ বছরের ব্যক্তি সুরাটের পুনগাম এলাকার বাসিন্দা হরসুখ ভিকাভাই বাদহামাসি ৷

‘কেউ যদি কিছু না করে তাহলে আমি মারা যাব’ – মৃত্যুকালে এমন আকুতি মেনে নেওয়া কষ্টের। কিন্তু এই আকুতি ছিলো একটুক্ষণি চিকিৎসা পাওয়ার আশায়!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘিরে ভারতের অবস্থা শোচনীয়।মারণ এই রোগ থাবা বসিয়ে কেড়ে নিচ্ছে একের পর এক জীবন ৷আর এরি মাঝে সম্প্রতি গুজরাটের সুরাটে এক ব্যক্তির মৃত্যুর আগের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ৷ সুরাট নগর পালিকার একটি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ওই ব্যক্তি৷ তার ব্যক্তির বাঁচার আকুতি ভরা ভিডিও এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ৷

হাসপাতালে রোগীদের জন্য যথেষ্ট ব্যবস্থা-পরিষেবা কোনটাই নেই এই অভিযোগ ভিডিওতে দেখা যায়।আর এরই মধ্যে লালাওয়াদির হাসাপাতালে ভর্তি থাকা ওই ভাইরাল ভিডিও রেকর্ড করা রত্ন কলাকার মারা গেছেন ৷

তার পরিবারে রয়েছেন স্ত্রী ও দুই সন্তান ৷তাদের জন্য আরো কিছুদিন বাঁচার ইচ্ছে ছিলো তার; কিন্তু করোনা মহামারি তা হতে দেয়নি। শেষ সময়ে এসে নিজের ভাইকে ডেকে নিয়ে জানান এই হাসপাতালে রোগীর চিকিৎসা করার প্রায় কোনও ব্যবস্থা নেই ৷

এই নিয়ে তিনি নির্মাণ করেন ভিডিও। ভিডিওতে বলেছেন,
‘কেউ আসে না, কেউ আমায় জিজ্ঞাসা করে না৷ চিকিৎসক আসতেন আর ওষুধ দিয়ে চলে যান, ঘুমে আচ্ছন্ন বোধ করছি বললে চিকিৎসকরা বলতেন ঘুমিয়ে পড়তে। তিনি নিজের ভিডিওতে শেষ কথা বলেন, কেউ যদি কিছু না করে তাহলে আমি মারা যাব ৷ তার ভিডিও ক্লিপটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আসার সঙ্গে সঙ্গেই ভাইরাল হয়েছে ৷’

এদিকে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই হাসপাতালের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে নানা মহলে ৷ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। মৃতের পরিবারও অত্যন্ত বিক্ষুব্ধ ৷

তাদের দাবি শুধুমাত্র অবহেলার জন্যেই ওই ব্যক্তি করোনার মারা গেছেন। এরি মাঝে বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও তথ্য সূত্রে জানা যায়

রিপ্লে

মন্তব্য লিখুন!
নাম