লেবাননে বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৭৩, আহত ৩৭০০

Must Try

বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার স্বরুপ

তাহেরা আক্তার;প্রতিনিধি আমি একজন সাধারণ মননশীল চিন্তাভাবনার মানুষ। আমার ঠিক মনে পড়ে বুদ্ধির বয়স থেকেই শুনে এসেছি- শিক্ষা'ই জাতির মেরুদণ্ড, বই পুস্তকেও...

করোনা ঠেকাতে নতুন সতর্ক অবস্থানে এখন- বিসিবি

করোনার মহামারীকে কেন্দ্র করে গত দীর্ঘ প্রায় ৫ মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রাখা হয় দেশের ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সহ সকল প্রকার ক্ররিয়া...

এবার এইচএসসি পরীক্ষার নিয়ে পরিকল্পিত দুটি বিকল্পের ঘোষণা

বর্তমানে দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশের এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় ব্যাঘাত ঘটেছে।এতে করে দেশের প্রায় ১৩ লাখ শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা উদ্বিগ্ন! ইতিমধ্যেই বাংলাদেশ...

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত আরো ১৫৯২ জন, কমেছে মৃত্যু সংখ্যা

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে আরও ১ হাজার ৫৯২ জনের দেহে। এসময় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৩২ জনের মৃত্যু...

লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বন্দরের কাছে ভয়াবহ বিস্ফোরণে ৭৩ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৩৭০০ জনের আহত হওয়ার খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা।

বিজ্ঞাপন

লেবাননের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ ফাহমী আল-জাজিরাকে বলেছেন, বিস্ফোরণের সঠিক কারণ জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বন্দরের একটি গুদামে সংরক্ষিত অ্যামোনিয়‍াম নাইট্রেট থেকে এই বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।  

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী হামাদ হাছান বলেছেন, প্রাথমিক হিসাবে ৫০ জন নিহত ও ২ হাজার ৭৫০ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছিল। তবে এখন নিহতের সংখ্যা বাড়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) দুপুরে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে শক্তিশালী বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে শহরজুড়ে আতঙ্ক তৈরি হয়। শহরের বাসিন্দারা বলেছেন, বিস্ফোরণে তাদের শহরটি ভূমিকম্পের মতো কেপে ওঠে।

সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান ও বিবিসি জানাচ্ছে, বিস্ফোরণে আহতদের ভিড় উপচে পড়ছে বৈরুতের হাসপাতালে। একসঙ্গে এতো আহত মানুষের সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরা। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় অনেক পোড়া রোগী ও রক্তাক্তদের নিতে পারছে না হাসপাতালগুলো।

সেজন্য লেবাননের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এসব আহতদের সেবা করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে। অনেক হাসপাতাল স্থানের সংকুলান না হওয়ায় আর কোনো রোগী নিতে পারছে না।

ভয়াবহ এই পরিস্থিতি সামাল দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাহায্য চেয়েছেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়াও স্বাস্থকর্মী ও দেশটির রাজনীতিবিদেরা হাসপাতালের আহতদের রক্তদান করতে আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা রেডক্রসের লেবানিজ শাখা।

ঘটনার ভয়াবহতার বর্ণনা করতে গিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে রেডক্রসের লেবানিজ শাখার প্রধান জর্জ বলেন, ‘আমরা ভয়াবহ এই বিপর্যয় প্রত্যক্ষ করছি। বিস্ফোরণস্থলের পাশে কিংবা সেখান থেকে অনেক দূরের রাস্তাগুলোতে যত্রতত্র আহত ও নিহত মানুষ পড়ে আছে।’

লেবাননের রাষ্ট্র-পরিচালিত ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সি (এনএনএ) জানিয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জোড়া বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে গোটা বৈরুত শহর। বিস্ফোরণ অনুভূত হয়েছে দেড়শো কিলোমিটার দূর পর্যন্ত। প্রথম দিকে বিষয়টিকে ভূমিকম্প ভেবেছিল সেন্ট্রাল বৈরুতের বাসিন্দারা।

এদিকে ঘটনার পর পর টুইটারে বিস্ফোরণের দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে।

সেখানে দেখা গেছে, সেন্ট্রাল বৈরুতের আকাশে ধোঁয়ার লাল কুণ্ডুলী। এর পরপরই বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে সেন্ট্রাল বৈরুতের বাসিন্দাদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বিস্ফোরণটি এত শক্তিশালী ছিল যে বাসিন্দারা ভেবেছিল ভূমিকম্প হয়েছে। মানুষজন চিৎকার, ছুটোছুটি করেছে। বাসিন্দাদের তোলা ভিডিও এবং ছবিতে শহর জুড়ে ভবনগুলোর দরজা ও জানালার গ্লাস ভেঙ্গে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

টুইটারে এক বাসিন্দা বিস্ফোরণের ভিডিও আপলোড করে লিখেছেন, ঘটনাস্থল থেকে তার বাড়ি ১০ কিলোমিটার দূরে। অথচ এতো দূরেও তার এলাকা কেঁপে উঠেছে। এবং তার বাড়িসহ আশপাশের ভবনগুলোর জানালার কাচ ভেঙে পড়েছে।

বিস্ফোরণটি কী কারণে ঘটেছে, তা এখনও স্পষ্টভাবে বলা না গেলেও ঘটনাস্থলে আতশবাজি থাকায় আগুন লাগার পর এই বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, আতশবাজির এক গুদাম থেকে এই বিস্ফোরণ হয়ে থাকতে পারে।

তবে লেবাননের রাষ্ট্র-পরিচালিত ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সি (এনএনএ) বলছে, বন্দর এলাকায় একটি বিস্ফোরকের ডিপোতে আগুন লাগার পর ওই বিস্ফোরণ ঘটে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, যে স্থানটিতে বিস্ফোরণ ঘটেছে, সেখানে বন্দরের গুদাম রয়েছে। রাসায়নিকের মজুদ থাকা বন্দরের গুদামে প্রথম আগুন লাগার কথা জানা গেছে।

এদিকে লেবাননের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে বলেছেন, বন্দরে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুদ করা ছিল। তা থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছে।

লেবাননের প্রেসিডন্ট মিচেল ওন দেশের সুপ্রিম ডিফেন্স কাউন্সিলের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব বলেছেন, বিস্ফোরণের জন্য যারাই দায়ী হোক, তাদের চরম মাশুল দিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিনিয়ত নতুন খবর পেতে চোখ রাখুন ফেইজবুক পেইজে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সম্পর্কিত পোস্ট